রাজবাড়ী, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন

পাংশার পাট্টায় পথসভা করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনুস বিশ্বাস

প্রকাশ: ২৭ আগস্ট, ২০২১ ৯:৪৩ : অপরাহ্ণ

॥ মাসুদ রেজা শিশির ॥ রাজকন্ঠ ডট কম

আগামী ডিসেম্বর ২০২১ এর মধ্যে সকল প্রকার নির্বাচন সম্পূন্য করার ঘোষনা দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন।এ ঘোষনার পর থেকেই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভব্য প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারনা পূনরায় শুরু করে দিয়েছেন।
তারই ধারাবাহিকতায় প্রচারনায় রয়েছেন রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাস। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে গনসংগো করে চলছেন প্রতিনিয়ত। প্রচারনার অংশ হিসাবে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুক্রবার বিকালে নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন করেছে চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনুস আলী বিশ্বাস।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৫ টায় পাট্টা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের পুঁইজোর বাজারে এ নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন করা হয়। নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন ও নির্বাচনী পথ সভায় বক্তব্য রাখেন মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাস । এ অন্যন্যেদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম মোল্লা, পাট্টা ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, রেজাউল করিম বিশ্বাস, ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগে সভাপতি সামছুর রহমান,সাধারণ সম্পাদক ফজলু বিশ্বাস প্রমুখ। এছাড়া পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে প্রচার প্রচারণায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন পাট্টা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাস। চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাস প্রতিনিয়ত পাট্টা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে গণসংযোগ ও স্থানীয় নেতা কর্মীদের সাথে মত বিনিময় করে চলছেন। প্রচারণার অংশ হিসাবে ইউনিয়নের সকল স্থানে ব্যানার ফেস্টুন লাগিয়ে জোর প্রচারণায় রয়েছেন তিনি। সেই সাথে এলাকার মানুষের সাথে নিয়ে প্রতিনিয়ত করে চলছেন গণসংযোগ। ইউনুস আলী বিশ্বাস শিক্ষিত একজন মানুষ পেশায় শিক্ষকতা করেন সেই সাথে এলাকায় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হিসাবে রয়েছে তার সুখ্যাতি, সাধারণ মানুষের বিপদে আাপদে পাশে ছুটে যাওয়ার প্রবনতা ছোট বেলা থেকেই। মানুষের বিপদে সহযোগীতার হাত বাড়ীয়ে দিতে নেই কোন কারপূর্নতা।

ই্উনুস আলী বিশ্বাস বলেন আমি দলের কাছে মনোনয়ন প্রত্যাশী- দল আমাকে মনোনয়ন দিলে সকল নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে নির্বাচন করে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করে যাব। এছাড়াও পাট্টা ইউনিয়নের সকল মানুষের পাশে থেকে সেবা করার চেষ্টা করে যাব। পাট্টা ইউনিয়নের সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাস পারিবারিক ভাবেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনিতির সাথে জড়িত। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে দীর্ঘদিন সু-নামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছে, তার আগে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছেন নেতৃত্ব দিয়েছেন পাট্টা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের। দলের সকল কর্মকান্ডে সক্রিয় ভাবে দায়িত্ব পালন করায় বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কমিটিতে তাকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সকল কর্মসূচীতে সক্রিয় ভাবে অংশ নিয়ে কাজ করে চলছেন ইউসুন আলী বিশ্বাস। আওয়ামীলীগ নেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ ইউনুস আলী বিশ্বাসের আপন ২ভাই একজন ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক অপরজন ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে চলছেন।

চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনুস আলী বিশ্বাস বলেন – বর্তমান সরকারের আমলে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন গ্রাম পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে, উন্নয়নের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি দলের নিকট মনোনয়ন প্রত্যাশী দল আমাকে মনোনয়ন দিলে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে কাজ করে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব।

চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ ইউসুন আলী বিশ্বাস করোনা কালীন সময়ে ব্যক্তিগত অর্থায়নে এলাকার দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে থেকে স্বাধ্যমত সহযোগীতা করেছেন। সেই সাথে এলাকার হত দরিদ্র শীতার্থ মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করে থাকেন প্রতি শীত মৌসুম আসলেই। ইউনুস আলী বিশ্বাস বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত অর্থায়ন করে সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছেন সু নামের সাথে। পাট্টা ইউনিয়ন বাসির নিকট দোয়া ও আশাবাদী কামনা করেছেন মোঃ ইউসুন আলী বিশ্বাস। এই চেয়ারম্যান প্রার্থী মুজিব জন্ম শতবার্ষিকীকে স্বরণ করে রাখতে নিজের ব্যাক্তিগত অর্থায়নে এক অসহায় পরিবারকে ঘর করে দিয়েছেন। এই মহানুভবতায় এলাকার মানুষ তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।