রাজবাড়ী, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

শিক্ষক- শিক্ষিকার নেই অভিযোগ,অথচ চলছে নোংরা প্রচারনা !

প্রকাশ: ২৭ জুলাই, ২০২১ ৩:২৮ : অপরাহ্ণ

॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥রাজকন্ঠ ডট কম


রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মৃগী শহিদ দিয়ানত কলেজের শিক্ষক ও পাংশা উপজেলার বাগদুলী উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষিকাকে নিয়ে নানা ভাবে অপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে একটি কুচক্রী মহল। ওই শিক্ষক ২ জনের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে কু রুচিপূন্য ক্যাপশন লেখা হয়েছে, যা মান হানিকর বলে দাবী করেছেন ওই শিক্ষিকা।

এ বিষয়ে ওই শিক্ষিকা বলেন আমাদের যে ছবিটি ফেসবুকে দেওয়া হয়েছে এটা আমাদের পারিবারিক ভাবে তোলা একটি ছবি বেশ আগের, দির্ঘদিন ধরে আমরা পারিবিরক ভাবে এক সাথে চলা ফেরা করেছি। ওই কলেজ শিক্ষক আমার স্বামীর বন্ধু এবং আমরা একই কলেজে পড়ালেখা করেছি সেই থেকে আমরা বন্ধুর মত চলাফেরা করে আসছিলাম।

এরই মধ্যে আমার নিকট থেকে আমার স্বামীর অনুমতিতে ৫০ হাজার টাকা নিয়েছিল ওই কলেজ শিক্ষক। ওই টাকা ফেরত দেওয়াকে কেন্দ্র করে আমাদের মধ্যে কিছুটা ভ’ল বুঝাবুঝি হয়েছিল এবং সেটা আমরা পারিবারিক ভাবে মিটিয়ে নিয়েছিলাম। এ বিষয়ে একটি ঘরোয়া শালিশের মাধ্যমে লিখিত স্ট্যাম্পও রয়েছে, এখন আমি তার কাছে মাত্র ২০ হাজার টাকা পাব। কিন্তু এ ছবি এখন এতো দিন পরে কে বা কারা ফেসবুকে ছড়িয়ে ফায়দা লুটার চেষ্ঠা করছে তা আমার জানা নেই। এ বিষয়ে আমার বলার কিছু নেই।

এ ব্যাপারে ওই কলেজ শিক্ষকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন এটা আমার বিরুদ্ধে সড়যন্ত্র করা হচ্ছে কেউ রাজনৈতিক ফাইদা নিতে আমাকে হেয় করছে, ওই পরিবারের সাথে এখন আমার আর কোন সম্পূর্ক নেই। আমার জানা নেই কারা এটা করছে।

এদিকে এটা নিয়ে আনোয়ার হুসাইন নামের এক ব্যাক্তি ফেসবুকে স্ট্যাটার্স দিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্ঠা করছেন, কার স্বার্থে এটা করা হচ্ছে এ নিয়ে ধ্রমজালের সৃষ্ঠি হয়েছে। এলাকার সচেতন মহল মনে করেন এই ধরণের পারিবারিক ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে কু রুচিপূন্য মন্তব্য করা ঠিক হয়নি। এ ঘটনায় ওই স্কুল শিক্ষক বাদী হয়ে কালুখালী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।