রাজবাড়ী, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

গোয়ালন্দের ইউএনও আজিজুল হক খান মামুন মানবিক অফিসার হিসেবে পরিচিত

প্রকাশ: ২৯ জুন, ২০২১ ৯:৫৭ : অপরাহ্ণ

॥ জহুরুল ইসলাম হালিম॥রাজকন্ঠ ডট কম

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে যোগদানের পর থেকে তিনি হয়ে উঠেছেন এক মানবিক মানুষ। চারটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এই উপজেলাটি। বলছিলাম রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিজুল হক খান মামুনের কথা।

উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে এখন তিনি মানবিক অফিসার হিসেবেই পরিচিত। এখানে যোগদানের পর থেকেই তিনি সাধারণ মানুষের জন্য তার সাধ্যমত কাজ করে চলেছেন। দেশে মহামারি করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবের সংক্রমণ রোধে দিন রাত নিরলসভাবে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন গোয়ালন্দের এই মানবিক অফিসার।

মহামারি করোনাভাইরাসে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে জনসাধারণকে সচেতন করার জন্য ব্যানার, ফেস্টুন টাঙ্গিয়ে, মাইকিং করে ও উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে মসজিদে ইমাম, মুয়াজ্জিনকে দিয়ে নামাজের আগে সবাইকে করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাব থেকে দুরে থাকার জন্য বুঝাচ্ছেন। করোনাভাইরাসের এই মহামারিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তিনি দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তিনি গোয়ালন্দ উপজেলায় যোগদানের পরে অসহায় হতদরিদ্র মানুষের মাঝে ও নদী ভাঙন কবলিত মানুষের খোঁজ খবর নেওয়া সহ তাদের মাঝে দিনের এবং রাতের খাবার ও মাস্ক-হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করে যাচ্ছেন ।

উপজেলা সূত্রে জানা যায়, গোয়ালন্দ ইউএনও হিসেবে গত ২৬ এপ্রিল ২০২১ যোগদান করেন মো. আজিজুল হক খান মামুন। আর এই অল্প সময়ে দায়িত্ব নিয়েই তিনি গোয়ালন্দ উপজেলার মানুষের প্রতি ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দেন। বাল্যবিয়ে ও যৌতুক, চাঁদাবাজি এবং মাদক নির্মূলে একের পর এক অভিযান পরিচালনা করে যাচ্ছেন তিনি। আর এসব কর্মকাণ্ড চালিয়ে অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি এলাকার মানুষের কাছে হয়ে ওঠেন এক মানবিক মানুষ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইউএনও মো. আজিজুল হক খান মামুন চলমান করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের লক্ষে উপজেলার গ্রামগুলোতে জনগণকে সচেতন করার জন্য নিয়েছেন নানা পদক্ষেপ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিজেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে দিনে এবং রাতে পৌঁছে দিচ্ছেন খাদ্যসামগ্রী ও স্বাস্থ্য-সুরক্ষাসামগ্রী। প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার চারটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা খাদ্যসামগ্রী সঠিকভাবে বিতরণের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে দুস্থ অসহায় কর্মহীনদের হাতে পৌঁছে দিচ্ছেন।

করোনাকালে ব্যবসায়ীরা যাতে পণ্যের দাম বেশি নিতে না পারেন সে জন্য তিনি উপজেলার বিভিন্ন বাজার পরিদর্শন করছেন প্রতিনিয়ত। করোনার বিস্তার রোধে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে প্রতিদিন মাঠে দিনরাত কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সামাজিক সুরক্ষার দিকেও নজর রাখছেন তিনি। করোনা মোকাবেলার পাশাপাশি উপজেলায় বিভিন্ন অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধেও কঠোর অবস্থানে রয়েছেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিজুল হক খান মামুন বলেন- “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে আমার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিটি উদ্যোগ সফল করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মানবসেবা করতেই এ পেশাতে যোগদান করেছি। আমি গোয়ালন্দ উপজেলাবাসীর জন্য যেটা করছি, তা আমার দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধ থেকেই করছি।