রাজবাড়ী, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ আয়ুর্বেদিক মেডিসিন ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি পাংশার কৃতি সন্তান একরামুল হক

প্রকাশ: ১২ জুন, ২০২১ ৫:৫৬ : অপরাহ্ণ

॥ মাসুদ রেজা শিশির ॥রাজকন্ঠ ডট কম

একরাম ল্যাবরেটরীজ, একরাম হোমিও ল্যাবরেটরীজ, খান প্লাস্টিক, ডিজি ল্যাব হসপিটাল’র মালিক, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র অন্যতম সদস্য বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক মোঃ ইকরামুল হক খান ফরহাদ বাংলাদেশ আয়ুর্বেদিক মেডিসিন ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আয়ুর্বেদিক মেডিসিন ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশনের উন্নয়নকল্পে কাজ করে যাচ্ছেন।

নিজে এক সময় একটি ঔষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধি হিসাবে কর্মজীবন শুরু করা এই সফল মানুষের সাথে আলাপচারিতায় ঔষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধি থেকে আজকের এই অবস্থা নিয়ে এ প্রতিবেদকে তিনি বলেন- জীবনে বড় হতে হলে পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই, পরিশ্রম আর সততা থাকলে সফল হওয়া যায়।

বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক মোঃ ইকরামুল হক খান ফরহাদ বলেন, আমার শুধু মেডিসিন সেক্টরেই ৪শ’র বেশী মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। এদের মধ্যে ৩শ পরিবারই রাজবাড়ী জেলার। তার মধ্যে অধিকাংশ মানুষই আমার প্রিয় জন্মভূমি পাংশা উপজেলার, যারা এখানে কাজ করে জীবন জীবিকা নির্বাহ করছে।

তিনি আরো বলেন আমাদের ইচ্ছে রয়েছে পাংশাতে একটি আয়ূর্বেদিক কলেজ করার যার জায়গা ইতি মধ্যে চুড়ান্ত হয়েছে, খুব শিঘ্রই আমরা এ কলেজ নির্মানের উদ্দ্যোগ নিব। আমি যেখানেই থাকি আমার মন পড়ে থাকে এই পাংশাতে আমার পরিবারের সকল সদস্যই মানুষের কল্যানে কাজ করে থাকেন।

এক প্রশ্নের জবাবে এই শীর্ষ ব্যবসায়ী বলেন আমার মায়ের দোয়াতেই আজকে আমার এ পরিবর্তন। আমি ও আমার ভাই বোনেরা সকলেই আমার মা ও বাবাকে শ্রদ্ধার সাথে খেদমত করার যথাযথ চেষ্টা করেছি সব সময়। আমি মনে করি আমার পরিশ্রম সততা ও মায়ের দোয়া’র বরকতেই আল্লার অশেষ মেহের বানীতে আজ আমার এই অবস্থা।

বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক মোঃ একরামুল হক খান ফরহাদের সহধর্মিনী এ্যাড.শাইরুন্নাহার আহম্মেদ বলেন, ফরহাদ আজ একজন সফল মানুষ কিন্তু তিনি অনেক পরিশ্রম ও সততার মধ্য দিয়ে আজ এই পর্যায়ে এসেছেন। আমি দীর্ঘ সময় তার সাথে থাকার সুবাদে বলতে পারি তিনি একজন পরিশ্রমি ও সৎ মানুষ। এটা আমার গর্ব।

বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক মোঃ একরামুল হক খান ফরহাদ রাজবাড়ীর পাংশার উপজেলার হাবাসপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আল মামুন খান ও ঢাকা মহানগর দক্ষিন কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সাইফুল ইসলাম খান নকীবের বড় ভাই।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আপনার ভাই আল মামুন খান কি নির্বাচন করবেন এমন প্রশ্নে এই বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী ফরহাদ খান বলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি নৌকা প্রতীক দেন তাহলেই আমার ভাই মামুন খান নির্বাচন করবেন এমন প্রত্যাশা রয়েছে আমাদের ও হাবাসপুর ইউনিয়ন বাসির। বিশিষ্ট শিল্পপতি একরামুল হক খান ও তার পরিবারের সদস্যরা সব সময়ই হাবাসপুর ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের পাশে থেকে সেবা করে চলছেন।

শুক্রবার বিকালে এ প্রতিবেদকের সাথে কথা বলার পরপরই নিজ গ্রামের মানুষের সহযোগীতার জন্য একটি গাড়ীতে করে শাড়ী কাপড় ও বিভিন্ন সরঞ্জামসহ স্ত্রী সন্তান নিয়ে সেখানে গিয়ে বিতরণ করেছেন।