রাজবাড়ী, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারি হাসপাতালের আয়োজনে

কালুখালীতে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলা

প্রকাশ: ৫ জুন, ২০২১ ১০:৫৬ : অপরাহ্ণ

রুবেল আহম্মেদ:রাজকন্ঠ ডট কম

রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলায় পুষ্টি,মেধা,দারিদ্র বিমোচন-প্রানিসম্পদ প্রদর্শনী  আয়োজন এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে প্রাণিসম্পদ  প্রদর্শনী  ও মেলার  উদ্বোধন করেছেন।

৫ জুন (২০২১) শনিবার দুপুর ১২ টায় উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারি হাসপাতালের আয়োজনে মোহনপুর কে.বি একাডেমি মাঠ প্রাঙ্গণে ৫০টি স্টলে উপজেলার বিভিন্ন খামারির অংমগ্রহনের অংশ গ্রহন করেন।এসময় খামারিদের উদপাদিত প্রাণীসম্পদ ও খামারজাত পণ্য প্রদর্শন  করেন।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ  কর্মকর্তা  (ভারপ্রাপ্ত) ও সদস্য সচিব প্রাণিসম্পদ  প্রদর্শনী-২০২১ বাস্তবায়ন কমিটি  ডা.পদ্রীব কুমার সরকার এর সভাপতিত্বে  প্রাণিসম্পদ সম্প্রাসারন কর্মকর্তা কৃষিবিদ আবু হেনা মোঃ আসিফ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য  ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আবু জালাল,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) জয়ন্ত কুমার দাস,উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আকামত আলী মন্ডল,রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা,উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুল বাশার চৌধুরী,সমবায়  কর্মকর্তা এ বি এম হেলাল উদ্দিন,মদাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম মৃধা প্রমূখ।এসময় খামারিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোঃ আলম মিয়া।

এ সময় বক্তারা বলেন, প্রাণিসম্পদের খামার পরিবার ও দেশের আমিষের ঘাটতি পূরণ করে। বেকার ছেলেরা চাকুররীর পিছে না ছুটে গবাদিপশু পালন ডেইরি ফাম দিয়ে অথনৈতিক ভাবে স্বাবলী হচ্ছে। পাশাপাশি গৃহিনী, অবসরপ্রাপ্ত ব্যক্তিগণ বাড়ির আঙ্গিনায় স্বল্প পরিসরে হাঁস-মুরগি ও গবাদিপশু পালন করে পরিবারের চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি আয় করতে পারে। দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে অংশগ্রহণ করতে পারে।

বক্তাগণ আরো বলেন বাংলাদেশে এক সময় ভারত থেকে গরু না আসলে গোরবানী দেওয়া খুবই কঠিন হয়ে পড়তো কিন্তু এখন দেশের চাহিদা মিটিয়ে বৈদেশিক অর্থ উপাজনের লক্ষ্যে খামারিরা কাজ করছে।

এ সময় খামারিরা প্রদর্শনির জন্য উন্নয়ন জাতের গরু, ছাগল,মহিশ,ভেড়া,গারল সহ  বিভিন্ন প্রজাতির     হাঁস-মুরগি,কবুতর, খোরগোশ এছাড়াও দধী খাদ্য,ঔষধ, চিকিৎসার উপকরণ সহ নানা ধরনের উপকরণ প্রদর্শনী করেন।

প্রদর্শনী ও মেলার উদ্বোধন ও আলোচনা সভা শেষে আমন্ত্রিত অতিথি বৃন্দ প্রতিটা প্রদর্শনী স্টল পরিদর্শন করেন।

দিনশেষে বিকেল পাঁচটায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে খামারিদের ৩ ক্যাটাগরিতে বিচারকমন্ডলীর বিচারে ৫০টি স্টলের মধ্যে দুদ্ধখামারি মোঃ রুবেল মন্ডল প্রথম,ডেইরি প্রোডাক্ট উৎপাদনকারী মোঃ নিয়ামুল ইসলাম দ্বিতীয় ও ছাগল খামারি মোছাঃ হালিমা বেগম তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। পরে তাদের হাতে ১০ হাজার টাকা চেক ও সাটিফিকেট প্রদান করেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত) ডা. প্রদীপ কুমার সরকার ও অন্যান্য অতিথি বৃন্দ। এসময় অংশ গ্রহণকারী সকলকেই শান্তনা পুরষ্কার দেওয়া হবে।

উক্ত প্রদর্শনী মেলা অনুষ্ঠানে সকলের উপস্থিতি ও সর্বাত্বক সহযোগিতা করার জন্য উপস্থিতি সকলের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন প্রাণিসম্পদ  কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও সদস্য সচিব প্রাণিসম্পদ  প্রদর্শনী-২০২১ বাস্তবায়ন কমিটি  ডা.পদ্রীব কুমার সরকার।