রাজবাড়ী, ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১

বিশ্ব দুগ্ধ দিবস উপলক্ষে

রাজবাড়ী‌তে সাড়ে তিন’শ ছাত্র-ছাত্রী‌কে টি শার্ট ও দুধ বিতরণ ক‌রে‌ছে

প্রকাশ: ৩ জুন, ২০২১ ১১:০১ : অপরাহ্ণ

॥জহরুল ইসলাম হালিম॥ রাজকন্ঠ ডট কম

রাজবাড়ী জেলা প্রা‌ণিসম্পদ দপ্ত‌রের আ‌য়োজ‌নে প্রা‌ণিসম্পদ ও ডেইরী উন্নয়ন প্রকল্প (এ‌ল,‌ডি,‌ডি,‌পি)র সহ‌যো‌গিতায় বিশ্ব দুগ্ধ দিবস ও দুগ্ধ সপ্তাহ ২০২১ উদযাপন উপল‌ক্ষে রাজবাড়ী জেলার বি‌ভিন্ন এ‌তিম ও মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রী‌দের‌কে দুধ ও টি শার্ট বিতরণ করা হ‌য়ে‌ছে।
৩জুন (বৃহস্প‌তিবার) দুপু‌রে রাজবাড়ী শহ‌রের বি‌নোদপুর নতুন পাড়া জা‌মিয়াতুসসুন্নাহ জ‌য়েনউ‌দ্দিন হা‌ফি‌জিয়া মাদ্রাসা ও এ‌তিমখানায় জেলা প্রা‌ণিসম্পদ অ‌ধিদপ্ত‌রের কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলুল হকের প‌রিচালনায় বি‌নোদপুর নতুন পাড়া জা‌মিয়াতুসসুন্নাহ জ‌য়েনউ‌দ্দিন হা‌ফি‌জিয়া মাদ্রাসা ও এ‌তিম ছাত্র-ছাত্রী‌দের ও শিক্ষক‌দসহ প্রায় সাড়ে তিন’শ ছাত্রছাত্রী ও মাদ্রসার শিক্ষকবৃন্দের হা‌তে ১ টি ক‌রে দু‌ধের প্যাকেট ও ১টি ক‌রে টি শার্ট বিতরণ করা হ‌য়ে‌ছে।
অপর‌দি‌কে শহ‌রের বি‌নোদপু‌রে রাজবাড়ী সরকারী শিশু সদন প‌রিবা‌রে প্রায় ১’শ শিক্ষার্থীদের মা‌ঝে ১‌টি টি শার্ট ১ প্যাকেট করে দুধ বিতরণ করা হ‌য়ে‌ছে।

এসময় ছাত্র-ছাত্রী‌দের মা‌ঝে টি শার্ট ও দুধ বিতরণকা‌লে উপ‌স্থিত ছি‌লেন বি‌নোদপুর নতুন পাড়া জা‌মিয়াতুসসুন্নাহ জ‌য়েনউ‌দ্দিন হা‌ফি‌জিয়া মাদ্রাসার প্র‌তিষ্ঠাতা সভাপ‌তি মো. জ‌য়েনউ‌দ্দিন মোল্লা, মাদ্রাসার প‌রিচালক হা‌ফেজ মাওলানা মো. জহিরুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক হাফেজ মো. মাছুম‌বিল্লাসহ প্রমূখ।

 

রাজবাড়ী জেলা প্রা‌ণিসম্পদ অ‌ধিদপ্ত‌রের কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলুল হক জানায় , সারা বিশ্বজুড়ে দুধ একটি স্বীকৃত পুষ্টিকর খাবার। এ কারণে’ই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মানুষ‌কে নিয়মিত দুধ পান করার পরামর্শ দেয়। দুধে আছে ক্যালসিয়াম, যা হাড় ও দাঁতের গঠনের জন্য জরুরি। দুধের আমিষ শরীরে শক্তি জোগায়। দুধ মানুষের শরীরে পটাশিয়াম, ফসফরাস, ভিটামিন ডি, ভিটামিন বি-১২, ভিটামিন এ, জিংকসহ নানা ধরণের পুষ্টি উপাদানের জোগান দেয়।

পুষ্টিবিদরা বলছেন, করোনাভাইরাসের এই প্রাদুর্ভাবকালে শরীরের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে নিয়মিত দুধের মতো পুষ্টিকর খাবার খাওয়া দরকার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) পরামর্শ অনুযায়ী একজন মানুষের দৈনিক গড়ে ২৫০ মিলিলিটার দুধ পান করা উচিত। কিন্তু তার চেয়ে অনেক কম দুধ পান করে বাংলাদেশের মানুষ।