রাজবাড়ী, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

হামলায় আতঙ্কে পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও স্বজনরা \ জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন

প্রকাশ: ২৮ মে, ২০২১ ১০:০৬ : অপরাহ্ণ

॥ স্টাফ রিপোর্টার॥ রাজকন্ঠ ডট কম

দফায় দফায় হামলায় চরম আতঙ্কে রয়েছেন রাজবাড়ীর পাংশা পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী কোরবান চৌধুরী ও তার স্বজনরা। পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে শুক্রবার সকালে পৌরসভার কুড়াপাড়ায় তার নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন কোরবান চৌধুরী।
তার অভিযোগ ৬ নং ওয়ার্ডের বিজয়ী কাউন্সিলর প্রার্থী বাদশা মন্ডল ও তার লোকেরা এ হামলা চালিয়েছে। হামলায় এ পর্যন্ত আহত হয়েছেন অন্ততঃ ১০ জন। যারা গুরুতরভাবে জখম হয়ে এখনও স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারেনি।

একই দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ পাংশা পৌরসভা শাখা।

সংবাদ সম্মেলনে কোরবান চৌধুরী বলেন, আমি কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতার পাশাপাশি নৌকা প্রার্থীর পক্ষেও কাজ করেছি। বাদশা মন্ডল ছিল আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে। গত ৩০ জানুয়ারি নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ হওয়ার আগেই বাদশা মন্ডলের লোকজন তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক তান্ডব চালায়। কয়েক দফায় তার বাড়ি এবং সমর্থকদের উপর হামলায় পরিবার পরিজন নিয়ে চরম আতঙ্কে রয়েছেন। কখন যেন হামলা করে। তিনি জানান, হামলার ঘটনায় তিনি পাংশা থানায় মামলা করেছিলেন। সেই মামলায় পুলিশ পাঁচজনকে গ্রেপ্তারও করেছিল। জামিনে ছাড়া পেয়ে তারা আবারও হুমকি ধমকি দিচ্ছে। হুমকিদাতারা বলছে, আরিফ চৌধুরীর পরিণতি ভোগ করতে হবে সবাইকে।

লিখিত বক্তব্যে কোরবান চৌধুরীর সহোদর ভাই ও মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ পাংশা পৌরসভার শাখার সভাপতি ইসরাফিল হোসেন বলেন, গত ১০ মে তারিখে পবিত্র রমজান মাসে আবার তার কর্মী সমর্থকদের উপর বর্বর হামলা করে। এতে আওয়ামী লীগ নেতা তমছের মন্ডল, আরিফ চৌধুরী, শরিফ চৌধুরী, নাইম মন্ডল গুরুতর আহত হয়। কয়েক দফা হামলায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত আরিফ চৌধুরীর অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ১৯টি কোপ দেওয়া হয়েছে। মাথায় সেলাই দিতে হয়েছে ৭০টি। শরীরে সেলাই দিতে হয়েছে একশটি।