রাজবাড়ী, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

রাজবাড়ীতে ৬ বছরের শিশু কে অপহরণ

প্রকাশ: ১৮ মে, ২০২১ ৭:১২ : অপরাহ্ণ

॥জহুরুল ইসলাম হালিম ॥রাজকন্ঠ ডট কম

রাজবাড়ী পাংশা সাজুরিয়া গ্রামের ৬ বছরের শিশু মুরছালিন গত রবিবার (১৬ মে) সকাল থেকে নিখোঁজ।

এলাকাবাসী জানান, সাজুরিয়া গ্রামের মোহাম্মদ ইউনুস মোল্লার বাড়ির সামনে পাকা রাস্তার উপর হইতে সকাল আনুমানিক সাড়ে সাতটার দিকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি মুরছালিনকে মোটরসাইকেলে স্থানীয় সরিষা বাজারের দিকে নিয়ে যায়। আমরা ভেবেছি হয়তো তার আত্মীয়স্বজন ঈদ উপলক্ষে ঘুরতে এসেছে তাদের বাসায়।

মুরছালিন এর বাবা নবাব মন্ডল বলেন, রবিবার (১৬ মে) সকাল আনুমানিক ৭টার দিকে আমি আমার ছোট ছেলে মো. মুরসালিন কে নিয়ে পাংশা সাজুরিয়া গ্রামে আমার বাবার পুরাতন বাড়িতে যাই এবং ওই বাড়িতে আমার ছেলেকে রাখিয়া মাঠের জমি দেখতে যাই। আমার নতুন বাড়ী হইতে আমার বাবার বাড়ির দূরত্ব ২’গজের মত হবে। জমি দেখা শেষ করিয়া আমি সরিষা বাজারে যাই এবং বাজার থেকে সকাল ৮ টার দিকে আমি আমার নতুন বাড়িতে আসিয়া আমার স্ত্রী খুশি খাতুনকে জিজ্ঞাসা করি মুরসালিন তার দাদার বাড়ি থেকে আসেনি এখনো। আমার স্ত্রী জানায় যে মুরসালিন বাড়িতে আসেনি এখনো। তখন আমি মুরসালিন কে আনতে আমার বাবার পুরাতন বাড়িতে যাই। আমার বাবার কাছে জিজ্ঞাসা করি মুরসালিন কোথায়। বাবা বলেন মুরসালিন সকালে বাড়ি যাওয়ার কথা বলে চলে গিয়েছে। আমার ছেলে বাড়িতে ফিরে না আসায় আমি সহ আমার পরিবারের লোকজন মুরসালিন কে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করি। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে আমার পাশের বাড়ির মো. বশির উদ্দিনের ছেলে মো. কাওছার (৭) এর নিকট হতে জানতে পারি, সাজুরিয়া গ্রামের ইউনুস মোল্লার বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার উপর হইতে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি আমার ছেলেকে তাহার মোটরসাইকেলে উঠাইয়া সরিষা বাজারের দিকে নিয়ে গিয়েছে। তখন আমার ছেলেকে খোঁজার জন্য বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করি এবং আমার নিকটস্থ আত্মীয়-স্বজনদের নিকট ঘটনার বিস্তারিত বলি। আমি সহ আমার পরিবারের লোকজন ও নিকটস্থ আত্মীয়-স্বজন আমার ছেলেকে খোঁজাখুঁজি করে কিন্তু কোথাও আমার ছেলেকে পাওয়া যায় নাই। আমার ধারণা অজ্ঞাত নামা মানব পাচারের অপরাধ সংঘটনের লোক আমার ছেলেকে কৌশলে তার মোটরসাইকেলে উঠাইয়া অপরহণ করিয়া নিয়ে গিয়েছে।

আমার ছেলেকে খোঁজাখুঁজি করিয়া না পাইয়া
পাংশা মডেল থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করি।

পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, অভিযোগের পর থেকে আমরা শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবং এবিষয়ে তদন্ত করে দেখছি।

পাংশা মডেল থানায় শিশু মুরসালিন কে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া অজ্ঞাত নামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা দায়ের হয়েছে।