রাজবাড়ী, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার

গোয়ালন্দে যুবককে হত্যা করে বালির নিচে পুতে রাখার ঘটনায় ঘাতক গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ১৮ মে, ২০২১ ১০:৫৮ : অপরাহ্ণ

॥জহুরুল ইসলাম হালিম ॥ রাজকন্ঠ ডট কম

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে নিখোঁজের ৩ দিন পর গত ১১ মে মঙ্গলবার দুপুরে নাসির ইসলাম নয়ন (২০) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের দুদুখান পাড়ার শাহজাহান শেখের ছেলে।

পাশ্ববর্তী মঙ্গলপুর গ্রামের মশিউর রহমান নামে এক ব্যক্তির নির্মানাধীন বাড়ির পিছনে বালির নিচে নয়নের লাশ পুতে রেখেছিল ঘাতক।

ঘটনার ৫ দিন পর গত ১৬ মে রবিবার পুলিশ এ হত্যাকান্ডের একমাত্র ঘাতক মানিক হোসেন ওরফে আজমীরকে (১৮) গ্রেপ্তার করে। সে উজানচর ইউনিয়নের দরাপের ডাঙ্গীর হিরু শেখের ছেলে। সে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। মঙ্গলবার (১৮ মে) বিকালে এক এজহারের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।

এ হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মুরাদ হোসেন জানান, মানিক হোসেন ওরফে আজমীরকে চর দৌলতদিয়া হামিদ মৃধার হাট এলাকায় তার নানা বাড়ি হতে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার রাজবাড়ীর চীফ জুডিশিয়াল আদালতের বিচারক সুধাংশু শেখরের আদালতে সে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। এরপর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

মানিকের উদ্ধৃতি দিয়ে এসআই মুরাদ আরো জানান, নয়নের সাথে মানিকের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। ঘটনার রাতে তারা একসাথে বসে তালের রস (তারি) খায়। এরপর তাদের মধ্যে মাতলামি ভাব আসলে হঠাৎ করেই কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এ সময় হাতের কাছে থাকা হাতুরি দিয়ে মানিক নয়নের মাথার পিছন দিকে সজোরে আঘাত করে। এতে সে লুটিয়ে পড়ে এবং কিছুক্ষণ পর মারা যায়। এরপর লাশ গোপন করার জন্য সে একটি কোদাল জোগার করে মশিউর রহমানের বাড়ির পিছনে বালির নিচে পুঁতে রাখে। এ হত্যাকাণ্ডের সাথে সে ছাড়া আর কেউ জড়িত ছিল না বলে আদালতকে জানায়।