রাজবাড়ী, ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১

পাংশায় অনলাইনে জুয়া খেলে সব হারিয়ে পাওনাদারদের হুমকিতে আত্বহত্যা করল মিন্টু শেখ

প্রকাশ: ৬ জানুয়ারি, ২০২১ ৮:২৯ : অপরাহ্ণ

॥মাসুদ রেজা শিশির ॥রাজকন্ঠ ডট কম


ডিজিটাল মাধ্যম অনলাইনে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে নিমিয়ত জুয়ার আসর বসছে বিভিন্ন স্থানে এ নিয়ে সমাজে প্রতিনিয়ত বাড়ছে অস্থিরতা। শহরের ক্যাসিনু এখন অনলাইনের কল্যানে গ্রাম পর্যায়েও পৌছে গিয়েছে। এ অনলাইন জুয়া খেলতে গিয়ে বিভিন্ন এনজিও থেকে কিস্তির টাকা তুলে জুয়া খোরদের নিকট সহায় সম্বল হারিয়ে জুয়া খোরদের হুমকির মূখে টাকা পরিষদ করতে ব্যর্থ হয়ে আত্বহত্যা করেছে মিন্টু শেখ নামের ২ কন্যা সন্তানের জনক। মিন্টু শেখ রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার বাবুপাড়া ইউনিয়নের ভট্ট্রাচার্য পাড়ায় শাহাদাত শেখের ছেলে। মৃত মিন্টু শেখের চাচা নকু শেখ বলেন আমার ভাতিজা মিন্টু শেখ পেশায় একজন ভ্যানচালক ছিলো সে বিভিন্ন এনজিও থেকে কিস্তির টাকা উত্তোলন করে কি কতর সে বিষয় আমাদের অজানাছিল। সম্প্রতি আমরা জানতে পারি মিন্টু একই এলাকায় চৈতা গ্রামের মতিয়ার রহমান,স্কুল শিক্ষক ইব্রাহিম হোসেন বুড়ো ও রমজান আলীর সাখে নিয়মিত জুয়া খেলত।
গত ২ সপ্তাহ আগে নগত ১লক্ষ টাকা নিয়ে সে চৈতা গ্রামের মতিয়ার রহমান, স্কুল শিক্ষক ইব্রাহিম হোসেন বুড়ো ও রমজান আলীর সাখে জুয়া খেলতে গিয়ে সব টাকা হেরে যায় তখন ওই জুয়া খোররা তাকে ৫১ হাজার টাকা ধার দেয় এবং সে টাকাও ওই আসরে হেরে যায়। পরে সে ধার নেওয়া টাকা পরিষদ করতে মিন্টু শেখকে জোর করে এবং তাকে ধরে নিয়ে মাদ্রাসার মাঠে মারধরও করেছে এ কারনে আমার ভাতিজা মিন্টু শেখ গত ৪ জানুয়ারী বিকালে তিনতারা ব্রিজ এলাকায় গিয়ে ঘাস মারা ঔষুধ খেয়ে আত্বহত্যার চেষ্ঠা চালায় এসময় স্থানীয়রা আমাদের খবর দিলে আমরা তাৎক্ষনিক পাংশা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে চিকিৎসা দিচ্ছিলাম। হটাৎ মঙ্গলবার রাতে বেশী অসুস্থ হয়ে পড়লে পাংশা থেকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ট করা হয়। পরে রাতেই ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয় মিন্টু শেখের। এদিকে মিন্টু শেখের মৃত্যুতে অসহায় হয়ে পড়েছে দরিদ্র পরিবারটি। বুধবার দুপুরে পাংশা থানা পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য মিন্টু শেখের লাশ মর্গে প্রেরন করেছে। একই সাথে মিন্টু শেখের পিতা শাহাদাত শেখ বাদী হয়ে পাংশা থানায় লিখিত একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয় এলাকাবাসি হেলাল উদ্দিন বলেন এ বিষয় নিয়ে ২দিন আগে বৌবাজারে ওই জুয়ারুরা মিন্টু শেখের চিকিৎসার জন্য ইউপি সদস্য’র মাধ্যমে ১০ হাজার টাকাও দিয়েছিলেন বলে শুনেছি। এ ঘটনার পরপরই মতিয়ার রহমান এলাকা ছাড়া হয়েছে বলে শুনা যাচ্ছে। স্থানীয় একাধীক লোক বলেন এ চক্রটি দির্ঘদিন ধরে বৌবাজার এলাকায় অনলাইনে ক্রিকেট ও লুডু খেলার মাধ্যমে নিয়মিত জুয়ার আসর বসিয়ে সাধারণ মানুষদের সর্বশান্ত করে চলছে। এর থেকে পতিকার চাই এলাকার মানুষ। স্থানীয় ইউপি সদস্য ও বাবুপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নিজাম উদ্দিন বলেন ক্রিকেট খেলা নিয়ে তাদের মধ্যে নাকি লেনদেন ছিল বলে আমি বিষয়টি শুনেছি। এ ব্যাপারে বাবুপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমান আলী সরদার বলেন বিষয়টি আমি শুনেছি এটা অত্যন্ত দুঃখ জনক কাজ, বৌ বাজার এলাকায় এমন বেশ কিছু অনৈতিক কাজ সম্প্রতি হচ্ছে বলে আমি শুনেছি। বিষয় গুলো আমি প্রশাসনকে অবগত করছি।

Facebook Comments