• বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১১:৫১ অপরাহ্ন

পাংশায় যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে মারধর ॥ উদ্ধার করেছে পুলিশ

Reporter Name / ১০৯ Time View
Update : রবিবার, ৯ আগস্ট, ২০২০

॥মাসুদ রেজা শিশির ॥রাজকন্ঠ ডট কম

 

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের পূর্বপাট্টা গ্রামের শাহিন মন্ডল ও তার পরিবার দীর্ঘদিন ধরে যৌতুকের দাবীতে শাহিন মন্ডলের স্ত্রীকে অমানষিক নির্যাতন করে আসছিল। সর্বশেষ শুক্রবার রাতে স্ত্রী মায়া বেগমকে মারধর করে ঘরের মধ্যে তালা দিয়ে আটক করে রাখে পরে মায়া বেগমের পিতা বিষয়টি জানতে পেরে পাংশা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ প্রদান করলে পুলিশ তাৎক্ষনিক ওই বাড়ীতে গিয়ে তালাবন্ধ অবস্থায় গৃহ থেকে মায়া বেগমকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। মায়া এখন পাংশা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মায়া’র পিতা কালুখালী উপজেলার শাওরাইল ইউনিয়নের বাস্তেপুরের বাসিন্দা ওলিয়ার রহমান শনিবার সকালে সাংবাদিকদের বলেন প্রায় ৩ বছর আগে আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি বিয়ে দেওয়ার সময় নগদ ১লক্ষ টাকা ও বিভিন্ন আসবাপত্র দিয়েছিলাম বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন অযুহাতে আমার নিকট থেকে আরো প্রায় ২লক্ষাধীক টাকা নিয়েছেন আমার জামাই শাহিন মন্ডল ও তার পরিবার। মায়া বেগমের মামা বলেন সম্প্রতি আরো ২লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করে আমার ভাগ্নিকে নির্যাতন করে চলছে সম্প্রতি সময়ে আমরা জানতে পেরেছি ওই জামাই নেশা গ্রস্থ হয়ে পড়েছে বিভিন্ন সময় আমাদের মেয়ের উপর নির্যাতন করে আসছে তারা। এ ঘটনায় মায়া’র পিতা ওলিয়ার রহমান বাদী হয়ে পাংশা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। পাংশা মডেল থানার এস আই মোঃ মাহবুব হোসেন বলেন অভিযোগ পাওয়ার পরই অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন’র নির্দেশে রাতেই ওই গৃহবধুকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এদিকে ঘটনার পর থেকেই শাহিন মন্ডল পলাতক রয়েছে বলে জানাগেছে।

Facebook Comments


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

Recent Comments