রাজবাড়ী, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

পাংশায় কালভার্ট বন্ধ করে জলাবন্ধতা সৃষ্টি ॥ ৭শত একর জমির ফসল ক্ষতির আশংস্কায়

প্রকাশ: ১৮ জুন, ২০২০ ৫:২২ : অপরাহ্ণ

॥মাসুদ রেজা শিশির॥রাজকন্ঠ ডট কম:

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার বাবুপাড়া ইউনিয়নের ০১ নং ওয়ার্ডে পাংশা চাঁদপুর সড়কে একটি মাত্র কালভার্ট রয়েছে যে কালভাটটি দিয়ে ওই ইউনিয়নের পাংশা চাঁদপুর,পাংশা চরপাড়া,ব্রক্ষপুর ৩টি বিলের পানি অতিবাহিত হয়ে আসছিল দির্ঘদিন ধরে। হাটাৎ ওই এলাকার আকবর আলীর পুত্র মোঃ মুন্নাফ আলী কালভার্টের উভয় মুখ বন্ধ করে পুকুর খনন করে মাছচাষ শুরু করেছে। যে কারনে ওই এলাকার ৩টি বিলের পানি এখন আর বের হতে পারছেনা। এ নিয়ে ওই এলাকার কৃষকদের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকাবাসির পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক শতাধিক কৃষকের গণস্বাক্ষর যুক্ত একটি লিখিত অভিযোগ জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার’র নিকট দায়ের করেছেন। সরেজমিনে বৃহস্পতিবার ওই এলাকায় গিয়ে দেখাযায় পাটের জমির মধ্যে পানি জমে রয়েছে, যারা ধান লাগানোর জন্য ধানের বীজ বপন করেছিল তাদের সকলের বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে রয়েছে। স্থানীয় কৃষকদের সাথে কথা হলে তারা বলেন দির্ঘদিন ধরে এই কালভার্ট দিয়ে আমাদের বিলের পানি বের হতো তবে এখন কালভার্টটি বন্ধ থাকায় আমার খুব বিপদে পড়েছি। আগামী মৌসুমে আমরা ধান চাষ করতে পারব বলে মনে হচ্ছে না। ওই এলাকার সাবেক এক ইউপি সদস্য বলেন আমাদের এলাকার এই মাঠের মধ্যে দিয়ে একটি খাল খনন করা খুব জরুরী, একটি খাল থাকলে আমাদের এই কষ্ঠ হতো না সেই সাথে এই কালভার্টটি বন্ধ থাকায় আমাদের এলাকার মানুষের দুঃখ আরো বেড়েছে। এ ব্যাপারে বাবুপাড়া ইউনিয়নের ০১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন আমি এলাকাবাসির স্বার্থে কৃষকদের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছি বিষয়টি উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের মাধ্যমে কৃষকদের নায্য দাবী ও সুন্দর ভাবে ফসল ফলানোর ব্যবস্থা করবেন বলে আমি আশা করি।

এ ব্যাপারে বাবুপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমান আলী সরদার বলেন বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার’র কার্যালয়ে বসার কথা রয়েছে, তবে কালভার্টটি ভরাট করায় কৃষকদের ব্যপক ক্ষতি হচ্ছে বলে ইউপি চেয়ারম্যান জানান। এ ব্যপারে মুন্নাফ আলীর সাথে কথা বলার চেষ্ঠা করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

Facebook Comments