রাজবাড়ী, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

নাসিমের চিকিৎসায় ১৩ সদস্যের মেডিক‌্যাল বোর্ড

প্রকাশ: ৭ জুন, ২০২০ ২:৪৫ : অপরাহ্ণ

প্রিন্ট করুন

নিউজ ডেস্ক:রাজকন্ঠ ডট কম

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের চিকিৎসায় ১৩ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ও নিউরো সায়েন্সের পরিচালক অধ‌্যাপক ডা. দ্বীন মোহাম্মদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াসহ মেডিক‌্যাল বোর্ডের সদস্যরা বিকেলে তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন।

পর্যবেক্ষণ শেষে বিকেলে তারা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। কিন্তু তার অবস্থা সংকটাপন্ন। এই হাসপাতালে তার আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

মেডিক‌্যাল বোর্ডের সদস্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, ‘মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক পরিস্থিতি ক্রিটিক্যাল। আগামীকাল কী হবে তা আমরা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না।’

শুক্রবার ভোরে ব্রেন স্ট্রোক করার পর সফল অস্ত্রোপচার হলেও এখনো মোহাম্মদ নাসিমের মাথার ভেতরে বেশকিছু রক্ত জমাট বেঁধে আছে। তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। আগামী ৭২ ঘণ্টা তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

শনিবার দুপুরে মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে তানভির শাকিল জয় জানিয়েছেন, তার বাবা ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ে ৫ দিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। পরে তার শরীরে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে।

তিনি বলেন, ‘করোনা থেকে আব্বা (মোহাম্মদ নাসিম) খুব দ্রুত রিকভার করেন। কিন্তু গতকাল (শুক্রবার) সকালে আব্বার ম্যাসিভ ব্রেন স্ট্রোক হয়। সঙ্গে সঙ্গে অপারেশন জমাট বাঁধার রক্তের অধিকাংশই অপসারণ করা হয়। কিন্তু তারপরও আব্বা অত্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় আছেন। কেননা, এত বেশি রক্তক্ষরণ হয়েছে যে মাথার ভেতরে এখনো কিছু রক্ত জমাট বেঁধে আছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এখানকার চিকিৎসকরা আমাদের জানিয়েছেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা আব্বাকে যদি ওনারা স্থিতিশীল রাখতে পারেন তাহলে হয়তো সংকট কেটে যেতে পারে। উনাকে এখন আইসিইউতে রাখা হয়েছে। তিনি অচেতন অবস্থায় আছেন।’

জয় জানান, ৪৮ ঘণ্টা পর সিটি স্ক্যান করে দেখা হবে, মাথার ভেতরের রক্তক্ষরণ কী রকম আছে। ৭২ ঘণ্টা যদি তার শারীরিক অবস্থা এমন স্টেবল থাকে, তারপর হয়তো সাপোর্টটা আস্তে আস্তে কমিয়ে দিয়ে চেতনা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হবে।

এদিকে, মোহাম্মদ নাসিমের শারীরিক অবস্থাসহ সার্বিক বিষয়ে খোঁজ-খবর রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অপারেশন চলাকালেও একাধিকবার প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে তানভির শাকিল জয় ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছেন।

মোহাম্মদ নামিস আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র। ২০১৪ সালের সংসদ নির্বাচনের পর তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পান।

এর আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের সময় স্বরাষ্ট্রসহ একাধিক মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন মোহাম্মদ নাসিম।