রাজবাড়ী, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পাংশায় ব্যবসায়ীদের সাথে করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভা

প্রকাশ: ৩১ মে, ২০২০ ৫:৩৫ : অপরাহ্ণ

এস,কে পাল ॥রাজকন্ঠ ডট কম

এস,কে পাল ॥রাজকন্ঠ ডট কম

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে ব্যবসায়ীদের উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ৩১ মে (রবিবার) সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিল্লুল হাকিম এমপি’র পুত্র জেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আশিক মাহমুদ মিতুল হাকিম।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদ হাসান ওদুদ, পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আহসান উল্লাহ, পাংশা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাছপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খোন্দকার সাইফুল ইসলাম বুড়ো, পৌর মেয়র আব্দুল আল মাসুদ বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিভিল সার্জন ডা.এ এফ এম শফিউদ্দিন পাতা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোঃ জালাল উদ্দিন বিশ্বাস, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ ফজলে রাব্বী, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা  কর্মকর্তা খোন্দকার শফিকুল ইসলাম।

ব্যবসায়ীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পাংশার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নাজমুল কাদের সবুজ, অশোক কুমার পাল।

এ সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুজহাত তাসনীম আওন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ রোকেয়া খাতুন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ বছির উদ্দিন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম নাছিম আখতার, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা এম এ নাহার, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রিয়াজুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, বণিক সমিতির প্রতিনিধি, স্থানীয় সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সরকারি সিদ্ধান্তের পাশাপাশি পাংশা বাজারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ, পরিষ্কার-পরিছন্নতা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় ইত্যাদি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আশিক মাহমুদ মিতুল বলেন, জীবন ও জীবিকার তাগিদে আমরা বের হচ্ছি। কিন্তু অবশ্যই আমাদের সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলতে হবে। আমাদের সকলেরই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব¡ বজায় রেখে মহামারী এই করোনার সাথে যুদ্ধ করেই বাঁচতে হবে। সামাজিক সচেতনতায় আমরাই পারি এই সমাজ তথা দেশকে রক্ষা করতে।