রাজবাড়ী, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

এবার ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যান কালামের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ১৯ মে, ২০২০ ২:৫০ : অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজকন্ঠ ডট কম

নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজির অভিযোগের পর এবার এক গৃহবধুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধার বিরুদ্ধে। এঘটনায় কালুখালী থানায় বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ঐ গৃহবধু।

কালাম মৃধা রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ঐ গৃহবধুর বাড়ি কালাম মৃধার পাশ্ববর্তী গ্রামে হওয়ায় দীর্ঘদিন হতে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল কালাম মৃধা। এবিষয়ে গৃহবধু তার স্বামী ও শ্বশুরকে কু-প্রস্তাবের বিষয়টি জানালে চেয়ারম্যান রাগান্বিত ও ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্ষণের জন্য গভীর ষড়যন্ত্র করতে থাকে।

অভিযোগে আরো উল্লেখ রয়েছে, ঘটনার দিন ১৬ মে দিবাগত রাতে ঐ গৃহবধু প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ঘর হতে বের হয়ে পুনরায় ঘরে ফেরার সময় পূর্ব হতে ওৎপেতে থাকা চেয়ারম্যান কালাম মৃধা ও তার ২ সহযোগী গৃহবধুর মুখ চেপে ধরে যৌন নীপিড়ন সহ ধর্ষণের চেষ্টা করে। একপর্যায়ে ঐ গৃহবধুর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় ১৭ মে তাকে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা শেষে ১৮ মে ঐ গৃহবধু নিজে বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধা ও অজ্ঞাতনামা ২ জনের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এঘটনায় চিকিৎসক সহ ৮ জন স্বাক্ষী রয়েছে।

এ বিষয়ে ৮নং স্বাক্ষী কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শান মুহাম্মদ ইরান জানান, ঐ গৃহবধুর চিকিৎসা প্রদান করেছেন বলে স্বীকার করেছেন।

গৃহবধু কালুখালী উপজেলার হাটমদাপুর গ্রামের এক ভ্যানচালকের স্ত্রী। এব্যাপারে গৃহবধুর স্বামী জানান, ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধার কু-দৃষ্টি দীর্ঘদিন ধরে আমার স্ত্রীর উপর পড়ায় আমরা ভীতশন্তস্ত্র ছিলাম। থানায় অভিযোগের পর আমাদের উপর বিভিন্ন হুমকি প্রদান করে আসছে।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান কালাম মৃধা অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।