রাজবাড়ী, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

করোনা রোগীর শরীরে আশ্চর্য সব পরিবর্তন

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল, ২০২০ ৭:৪৪ : অপরাহ্ণ

মার্চের শেষ দিকে নিউ ইয়র্কের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের চিকিৎসকরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের রক্তে অদ্ভূত পরিবর্তন দেখতে পেলেন। বিষয়টি কৌতুহলের সৃষ্টি করলে হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখলেন, আক্রান্ত ব্যক্তির বিভিন্ন প্রত্যঙ্গে রক্ত ঘণীভূত হচ্ছে ও জমাট বেঁধে যাচ্ছে। করোনাভাইরাস মানবদেহে কী পরিমাণ ক্ষতির চিহ্ন রেখে যাচ্ছে এতে তারই একটি ইঙ্গিত পেলেন চিকিৎসকরা।

বার্তা সংস্থার রয়টার্স জানিয়েছে, মাউন্ট সিনাইয়ের কিডনি বিশেষজ্ঞরা করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির কিডনি ডায়ালাইসিসের সময় দেখতে পেলেন রক্ত জমাট বাঁধার কারণে ক্যাথারস বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ফুসফুস বিশেষজ্ঞরা ভেন্টিলেটর দেওয়া হয়েছে এমন রোগীদের বেলায় দেখলেন তাদের ফুসফুসের কিছু অংশ অদ্ভূতভাবে রক্তশূন্য হয়ে গেছে। রক্ত জমাট বাঁধার কারণে নিউরোলোজিস্টরা দেখলেন রেকর্ড সংখ্যক স্ট্রোকের রোগী বেড়ে গেছে।

মাউন্ট সিনাইয়ের নিউরোসার্জন ডা. জে মক্কো বলেন, ‘এটা বেশ লক্ষণীয় যে, এই রোগ কতটা রক্ত জমাট বাঁধার কারণ হতে পারে।’

তিনি জানান, করোনার কারণে সৃষ্ট রোগ কোভিড-১৯ ফুসফুসের রোগের চাইতেও বেশি কিছু। এক তরুণের বেলায় কোভিড-১৯ এর প্রথম লক্ষণ ছিল স্ট্রোক।

ডা. মক্কো জানান, তার সহকর্মী বিভিন্ন বিভাগের বিশেষজ্ঞরা তাদের পর্যবক্ষেণ একত্রিত করে নতুন একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা বের করেছেন। তারা এখন করোনা রোগীদের রক্ত জমাট বাঁধার লক্ষণ দেখা দেওয়ার আগেই রক্ত তরল করার উচ্চমাত্রার ওষুধ দিচ্ছেন।

হাসপাতালের প্রধান ডা. ডেভিড রেইখ বলেন, ‘হয়তোবা আপনি রক্ত জমাটা বাঁধা ঠেকাতে পারলে রোগটির প্রকোপ তুলনামুলকভাবে কমিয়ে আনতে পারবেন।’

তিনি জানান, নতুন এই চিকিৎসা ব্যবস্থা অতিঝুঁকিতে আছে এমন রোগীদের ওপর প্রয়োগ করা হবে না। কারণ রক্ত তরলীকরণের ওষুধ মস্তিস্ক ও অন্যান্য প্রত্যঙ্গে রক্তপাত ঘটাতে পারে।