রাজবাড়ী, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

ত্রাণ অনিয়মে যেই হোক কঠোর ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল, ২০২০ ৪:৫২ : অপরাহ্ণ

প্রিন্ট করুন

নিউজ ডেস্ক

 

দুর্যোগের সময়ে যারা মানুষের ত্রাণ নিয়ে নয়-ছয় করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এটা আমরা বরদাস্ত করবো না। সেটা আমার দলেরই হোক বা অন্য দলেরই হোক। আমরা এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

বুধবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান গ্রহণের সময় এ হুঁশিয়ারি দেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ত্রাণ বিতরণে কোনো সমস্যা হলে সঙ্গে সঙ্গে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছি।  যেই এর সঙ্গে জড়িত সে যে দলেরই হোক তাদের বিরুদ্ধে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি, ব্যবস্থা নেবো। কারণ গরিব মানুষের জন্য আমরা যে সহায়তা দেবো কেউ এর অপব্যবহার করবে, এটা আমরা বরদাস্ত করবো না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কয়েকটা জায়গায় এ সমস্যা পেয়েছি, তা খুব বেশি না। আমরা যদি তুলনা করি আমাদের প্রায় ৬৮ হাজারের মতো নির্বাচিত প্রতিনিধি রয়েছে বিভিন্ন এলাকায়।  চার হাজারের বেশি ইউনিয়ন, এরপর উপজেলা রয়েছে।  সব হিসেব করে দেখা গেলো যে হয়তো ৫/৭ জায়গায় সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সংকটে পড়া প্রতিটি মানুষের কাছে যেন ত্রাণ পৌঁছে যায় সেজন্য সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘সরকার দায়িত্ববোধ সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন এবং সেটা আমরা কার্যকর করে যাচ্ছি। চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।’

‘চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতিটি সদস্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।  পুরো দেশব্যাপী আমাদের যে নেতাকর্মী তাদেরও আমরা নির্দেশ দিয়েছি।  তারাও মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। সরকারিভাবে যা দেওয়া হচ্ছে পাশাপাশি বেসরকারিভাবে যে যতটুকু পারছেন সাহায্য করে যাচ্ছেন’, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় শুধু সমালোচনা না করে মানুষের পাশে দাঁড়াতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা দেখতে পাচ্ছি অনেকে অনেক কথা বলে বেড়াচ্ছেন, অনেক দল-মত, সুশীল সমাজ বা অনেকেই।  তারা কিন্তু মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসছে না। সমালোচনা করতেই ব্যস্ত।’

‘যেখানে সমস্যা হচ্ছে আমার কঠোর ব্যবস্থাও নিয়েছি। সেটা নিয়ে তারা চিৎকার করে যাচ্ছেন, তারা কিন্তু একটা মানুষকেও একটি পয়সা দিয়েও সাহায্য করছে না। মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। এতো কথা না বলে কয়েকটা মানুষকে সাহায্য করেন। এই দুঃখের সময়ে মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়ান। মানুষকে নিজে কতটুকু দিলেন সে হিসাবটা করুন,’ বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি আরও বলেন, ‘সাধারণ মানুষকে যেমন বিনামূল্যে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছি তেমনি ১০ টাকা কেজি মূল্যে ওএমএস’র মাধ্যমে চাল সরবরাহের ব্যবস্থা করেছি। যারা তালিকার বাইরে রয়েছে তাদের জন্য আমরা কার্ড তৈরির উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিটি মানুষ যেন সহায়তাটা পায় সেটা আমরা নিশ্চিত করতে চাই। যাতে প্রত্যেকের ঘরে এই ত্রাণ সহযোগিতাটা পৌঁছে যায়।’

এ সময় বেসরকরি ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ সহযোগিতায় যারা এগিয়ে এসেছেন তাদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

সবাইকে সচেতন থাকা, জনসমাগম এড়িয়ে চলা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন শেখ হাসিনা।

৩৩টি ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান হিসেবে নগদ অর্থ ও পিপিই দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে তার মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এসব অনুদান গ্রহণ করেন। এ সময় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী সংযুক্ত ছিলেন।