রাজবাড়ী, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় পেঁয়াজ কাটছে শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ: ৩ এপ্রিল, ২০২০ ৭:৫৯ : অপরাহ্ণ

কাজী হুমায়ন : করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে ১৭ মার্চ থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত  সরকার দেশের সকল স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করেছেন। ফলে পড়া-লেখার তেমন একটা চাপ নেই শিক্ষার্থীদের।
পড়ালেখার চাপ কম থাকায় অনেক শিক্ষার্থীই বাবা-মার কাজে সহযোগিতা করছে। রাজবাড়ীর বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে এমনই চিত্র চোখে পড়ে। তবে এই মুহূর্তে তারা বাবা-মার সাথে বাড়ি বসে পেঁয়াজ কাটছে তারা। অনেকেই আবার অন্যের বাড়ির পেঁয়াজ কেটে দিয়ে কিছু টাকা আয় করছে।
বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) দুপুরে  সরেজমিন বালিয়াকান্দির বনগ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ৪-৫ জন প্রাথমিকের শিক্ষার্থী এক জায়গায় বসে পেঁয়াজ কাটায় ব্যস্ত রয়েছে।
তারা  বলেন, করোনার কারনে দীর্ঘ সময়  স্কুল বন্ধ থাকায় আমরা নিজেদের পেঁয়াজ কাটছে। আবার যাদের নিজস্ব পেঁয়াজ নেই তারা প্রতিবেশিদের পেঁয়াজ কেটে দিচ্ছি। একমণ পেঁয়াজ কেটে দিলে তারা আমাদেরবে ৩০টাকা করে দিচ্ছেন। প্রতিদিন গড়ে ৫-৬ মন পেঁয়াজ আমরা কাটতে পারি।
পেঁয়াজ চাষি আমজাদ হোসেন আমজাদ হোসেন বলেন, এখন পেঁয়াজ ঘরে তোলার মৌসুম চলছে। পেঁয়াজ কাটার মানুষের বড় অভাব। এদিকে স্কুল বন্ধ থাকায় ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা মনের আনন্দেই পেঁয়াজ কাটছে। একমণ পেঁয়াজ কাটলে আমরা তাদেরকে ৩০ টাকা করে দিচ্ছি।