রাজবাড়ী, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, রোববার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২

শয়নকক্ষে যুবককে জবাই, মাটির নিচে মিললো মাথা ও শরীর

প্রকাশ: ১৪ আগস্ট, ২০১৯ ৪:৩১ : অপরাহ্ণ

প্রিন্ট করুন

দিনাজপুরের খানসামায় নিজ শয়ন কক্ষেই খুন হয়েছেন গোলাপ হোসেন (২৭) নামে এক যুবক। পরে মাটির নিচের ২টি স্থান থেকে তার শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন মরদেহ ও মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে খানসামা উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের শুশুলী গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে গোলাপের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত গোলাপ হোসেন ওই গ্রামের মৃত আতিক ইসলামের ছেলে। ওই ঘটনায় বুধবার খানসামা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে নিহতের বড় বোন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঈদের দিন খাবার খেয়ে গোলাপ হোসেন নিজ কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। পরের দিন মঙ্গলবার অনেক বেলা হলেও তাকে উঠতে না দেখে পরিবারের লোকজন ঘরের ভেতরে গিয়ে রক্ত দেখতে পায়।

পরে এলাকার লোকজন খোঁজাখুঁজি করলে বাড়ির প্রায় ৫শ’ গজ দুরে একটি পরিত্যক্ত জায়গায় মাটি খোড়া অবস্থায় দেখতে পান। পরে মাটি সরিয়ে হাত দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন।

পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মাটির নিচে পুতে রাখা গোলাপের মাথা বিহীন মরদেহ উদ্ধার করে। এরপর বাড়ি থেকে প্রায় ২৫০ মিটার দূরে একইভাবে মাটি খুড়ে মাথা উদ্ধার করা হয়।

খানসামার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এস এম মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সংবাদ পেয়ে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নিহতের শয়নকক্ষসহ বিভিন্ন স্থান থেকে বেশ কিছু আলামত উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি জানান, গোলাপকে নিজ শয়নকক্ষেই জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। এই ঘটনায় তার সৎ মা, সৎ ভাইসহ ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই ঘটনায় গোলাপ হোসেনের বড় বোন শাবানা খাতুন বাদি হয়ে বুধবার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

ওসি মোস্তাফিজুর আরো জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।  বিষয়টি তদন্ত করে আসল রহস্য উদঘাটন করা হবে এবং জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।